Bengali Poems by our friend of

RRKM89 - Nirmalya Chakraborty

(Soon we shall properly present this page. Presently only the contents are being uploaded to this section)

 

PREVIOUS<< >>NEXT

   

  

জন্মদিন
------------

টুং টাং, পিং পিং
মেসেজের বন্যা
মরলো কি কোনো নেতা
নাকি কোন কন্যা ।

ভারত কি জিতল
আরেকটা বড় ম্যাচ
নাকি ফের নাশকতা
ফাঁস হয়ে গেছে প্যাঁচ ।

আবার কি শুরু হল
যাকে তাকে খাওয়া কিস?
নাকি ফের সি বি আই
পাকড়েছে বড় ফিস ?

তাড়াতাড়ি খুলে দেখি
মোবাইল ফোনটা
এ যে দেখি আমারই
জন্ম দিনটা !!

কত শত শুভেচ্ছা
কত শত ভালবাসা
ফুরফুরে মনটা
পুরে গেল সব আশা ।

ভাই, বোন, দাদা, দিদি
আত্মীয় বন্ধু
দাঁড়া দাঁড়া পাই যেন
পায়েসের গন্ধ ?

ভাল-হাফ বানিয়েছে
কেক অতি যত্নে
কার্ড দেয় এ যে দেখি
মোর দুটি রত্নে !!

তবু যেন মনে হয়
কি জানি পেল না মন
মায়ের পরশ মাখা
স্নেহ ভরা চুম্বন ।

 

- নির্মাল্য চক্রবর্ত্তী

  

বন্ধুত্ব
--------

দুই বন্ধু গলাগলি
রাখছে বাজি আজ
পাড়ি দেবে মরুভূমি
উঠবে মাথায় তাজ ।

ভোরবেলাতে যাত্রা শুরু
পাখির ডাকের সুরে
ধীরে ধীরে সূর্য্য ওঠে
গা যেন যায় পুড়ে ।

গরম, মেজাজ - দুইই বাড়ে 
কে যায় কার উপর
এক বন্ধু আরেকটিকে
মারল কষে চড় ।

বিস্মিত, হতবাক
খেয়ে গালে চড়
দুঃখিত মনে বসে
বালির উপর ।

মুখে কোন কথা নেই
লেখে বসে বালিতে
মোর বন্ধু চড় মারে
আমারই মুখেতে ।

হেঁটে চলে বহুক্ষন
কথা নেই মুখে
হঠাৎ দেখে মরুদ্যান
চোখেরই সম্মুখে ।

উল্লাসে, আনন্দেতে 
নামল দুটি জলে
অবশেষে শান্তির স্নান
তোলপাড় তুলে ।

এমন সময় হঠাৎই
দুঃখী বন্ধু ডোবে
আরেকটিতে বাঁচায় তারে 
অসম্ভব সম্ভবে ।

মৃত্যুভীত, কম্পিত
পাথর কুঁদে লেখে
মোর বন্ধু বাঁচায় মোরে
জীবন তুচ্ছ রেখে ।

হতবাক, অপর বন্ধু
অবাক চোখে জল
একটি কথা শুধাই তোরে
সত্যি করে বল ?
বালির উপর লিখলি
যখন মেরেছিলাম চড়
এখন তবে লিখলি কেন 
খুঁড়ে এই পাথর ?

দুঃখের কথা লিখবি যত
বালির পরে ভাই
ক্ষমার হাওয়ায় জানবি তা ঠিক
মুছে যাবে তাই ।
সুখের কথা রাখবি কুঁদে
পাথরের উপর
কোনো হাওয়ার ক্ষমতা হবে ?
মুছবে সে আঁচড় ?

 

- নির্মাল্য চক্রবর্ত্তী

 

  

       

বিয়ের মেনু
-------------------

একদিন রাতে আমি স্বপন দেখিনু
চারিধারে কত কবি, আর কিছু হনু
কেউ বলে ছন্দে, কেউ বলে সনেটে
এই বুঝি কবিতা? বলে কোন গবেটে?

চেনা চেনা মনে হয় গলার ওই ব্যঞ্জনা 
কাক? নাকি কাদাখোঁচা? না না খঞ্জনা 
উঁকি মেরে দেখি বুঝি কার গলা এত সাধা
আরে আরে এ যে দেখি আমাদেরি কবিদাদা !

দেখ দেখি রাত জেগে লিখেছি কি কাব্য
কান খুলে শোন তবে, এইবারে পড়ব 
প্রথমেই লিখি যদি নুন আর পাতি লেবু
হাত বুঝি নিশপিশ? মিলবেই শেষে সাবু?

এরপর ধর যদি লিখি ফ্রাই চিপস্-ফিস?
ঠোঁটের কোনে মুচকি হাসি, আসবে বুঝি লিপ কিস?
ভেবে ভেবে এরপর লিখেছি যে বিরিয়ানি
পণ কর, লিখবি না ফস করে কুরবানী ।

পই পই করে বলি মেলাস না ছন্দ
তবে বুঝি আধুনিক, আছে কোন সন্দ?
যত দিবি উদ্ভট, উৎকট শব্দ
সব বেটা ঢিঢ হবে, সব বেটা জব্দ ।

কেউ কিছু বুঝবে না, চুপ করে থাকে তাই
ভাবে মুখ খুললেই বুঝে যাবে সব্বাই
আমি বলি কই দাদা শেষ কর পাঠ্য
মনে কত কুতুহল, জমে গেছে নাট্য ।

চাটনি পরের লাইন, তারপরে মিষ্টি
এইখানে এসে বুঝি থেমে গেছে সৃষ্টি !
সারা রাত ঘুম নেই পেকে গেল সব চুল 
কবিতার নাম কি? ভেবে না পাই কোনো কুল ।

মিন মিন করি আমি, দরদর ঘাম 
অনুমতি দাও যদি দিতে পারি নাম
আজ তুমি কত দূরে পাওনা বুঝি হাতে
বিয়ের মেনু নামটি রাখ খাওয়ার সাথে সাথে ।

  
নির্মাল্য চক্রবর্ত্তী
২৯ জুলাই, ২০১৫

 

Click the arrow to return

Home