Bengali Poems by our friend of

RRKM89 - Arijit Ghosh

  (Soon we shall properly present this page. Presently only the contents are being uploaded to this section)

 

PREVIOUS<<   >>NEXT

   

  

একটি সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী কবিতা

"একি? এতোটা জায়গা নিতে চাইছো কেন?
এটাতো আমার জায়গা!!"

"তাতে কি তোমার তো এতো লাগেনা,
কিন্তু আমার এ জায়গাটা নইলে কুলায় না।
ওটা দিতে হবে।। "

"কি অদ্ভুত? তাতে আমার কি?
রীতিমতো সীমানা করা আছে,
তাও টপকে আসতে চাও!!
এতো নির্লজ্জ আগ্রাসন!!

"হোক,বেশী অভিযোগ কোরোনা, 
তোমার জায়গাটা বেশী ভালো,
বাগিয়ে নিয়েছিলে গত বিরোধের
শেষে সন্ধিতে!
তুমি তো জানোই সন্ধিতে আমি সুবিধা করতে পারিনা "

"এতো নির্জলা মিথ্যাভাষণ!!
কি পাওনি তুমি সন্ধিতে শুনি?? "

 

"তোমার অঞ্চলে অবাধ গমন অধিকার,
বলো পেয়েছি কি?? "

"তোমার অবাধ গমন মানে নগ্ন লিপ্সা,
ছলে বলে লুঠ করার অভিপ্সা!
বলো সত্যি নয়? "

"আহা কৌশল যে তোমার করায়ত্ত,
সেটা তো তুমি বললে না??
বারবার পরাজয়কে তুমি বিজয়ে পরিণত করোনি??
আমার তো সন্দেহ হয় আমার দখলদারি তোমারই ইচ্ছাধীন।"
"বয়ে গেছে তোমার দখলদারিতে ইচ্ছা যোগ করতে "

"চলোনা আমরা মিলেমিশে যাই আগেকার মত,
যৌথদখলের আখ্যানে,
বেশ ছিল সেইসব দিন, রাত্রির কাব্য
তারপর অধিকার, স্বাধীনতাহরণ,
এমনকি হামলার অভিযোগ এনে তুমি এই প্রাচীর তুললে।
আমরা কি এটাকে সরিয়ে নতুন শুরু করতে পারিনা?
কি দরকার তৃতীয় পক্ষ, মধ্যস্থতার? "

"হুমম্, ঠিক আছে পাশবালিসটা সরিয়ে দাও।। "

 

 

বসন্ত বিলাস

বসন্ত কেবিনের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময়,
সরুফিতের মত ট্রামলাইন,এক ঝলক ঘাড় ঘুরিয়ে দেখে নেয়
কলেজ স্কোয়ারের রেলিংয়ে দাঁড়ানো অপেক্ষাকে। 
নিয়তি তাড়িত বিকেল, মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে দেখে
ময়ালসাপের মত তাকে গ্রাস করছে সন্ধ্যা। 
হঠাৎ দখিনা হাওয়ায় ওড়ে কেবিনের পর্দা,
চাকরি পেয়ে যাওয়া উজ্জ্বল মুখ,
বেলা বোসের ঠোঁট খুজতে গিয়ে,
থতমত থমকে 
চোখ তুলে দেখে অস্তরাগের সর্বনাশ।
ময়দানের ছাতিম,
তার যে পাতার পোশাক ধার দিয়েছিল
নিচের যুগল মুর্তিকে,তা সুদ সহ ফেরত চায়।
আর পার্কস্ট্রীটের নিশি নিলয়ে
গ্রীষ্মের ক্লেদাক্ত হাত,
নষ্ট ভ্রষ্ট করে ওই বসন্তবিলাস।।

 

চরিতামৃত

শীতঘুম শেষে বসন্তে সরীসৃপ শরীর,
লালসা কামনা ঝরায় ও চেরা জিহ্বা বৃহৎ।
ভালবাসা?? আত্মেন্দ্রিয় প্রীতি ইচ্ছা নিবিড়, 
পতন আর উত্থান মাঝে দোলে স্মৃতিসত্তাভবিষ্যৎ।।

   

কৃষ্ণ পক্ষ

বিবস্বান মধুগন্ধী, কীটগ্রস্ত ক্লীব, দুর্বিপাক রৌরব, 
সংশপ্তক ধর্ষকাম,বহ্নিমান নগরী, নীরো সাথে ধাবিত কৌরব। 
অম্বার সঘন নিঃশ্বাসে লোভাতুর অসম রমণ
প্রাতিকামী দ্যূতকক্ষে আহ্বান করে কীট,অনিবার্য শিখন্ডী শমন। 
দূর নিশালয়ে যোনিগন্ধে কায়ক্লেশ স্বেদ, 
জাহ্নবী উন্মুক্ত জানু, মনের অগোচর ক্লেদ। 
দ্বারকা নিমগ্ন জলে, ভেসে যায় রতিসুখ,কেশববিলাস, 
হিরোশিমা অভিসার শেষে নতুন কলমে বেদব্যাস।।

 

 

অরিজিৎ ঘোষ

২০১৫

 

Click the arrow

Next